শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৫২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ:

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চিকিৎসা ব্যবস্থা VS রাষ্ট্রযন্ত্রের ছলচাতুরী_অহিদুল

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১৩ মার্চ, ২০২২

বিশেষ প্রতিবেদক:

প্রতিদিনই কোন না কোন বীর মুক্তিযোদ্ধা চিকিৎসার অভাবে মারা যাচ্ছেন,হাসপাতাল থেকে ফেরত আসছেন না হয় টাকার অভাবে হাসপাতালে যেতে পারছেন না।এমন শত শত সাহায্য চাওয়ার অনুরোধ আসে,প্রতিদিনই এফবিতে ঢুকলেই চিকিৎসার অভাবে মারা যাচ্ছেন অমুক মুক্তিযোদ্ধা। আর এগুলো শুনতে শুনতে একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে,মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী একজন মানুষ হিসেবে মানসিক যন্ত্রণায় থাকি সব সময়।না পারি সাহায্য করতে না পারি নেত্রীকে জানাতে,শান্তনা বা পরামর্শ দেওয়া ছাড়া কোন পথ পাই না।
অথচ
সরকার কিছুদিন আগে ঘোষণা করেছিল জেলা শহরসহ বিশেষ কিছু হাসপাতাল এ ৫০ হাজার টাকার পর্যন্ত বিনা মূল্যে চিকিৎসা সেবা পাবেন বীর মুক্তিযোদ্ধাগন এবং দরকার পড়লে সেটা আরও বাড়াবে,কিন্তু সেটা নামে মাত্র। এ পর্যন্ত অনেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেও কোন সুরাহা পাইনি।তাহলে এর রহস্য কোথায়?কে খায় এই টাকা?কোথায় যায় এই টাকা? নাকি লোক দেখানো?এর জবাব কে দিবে?
অথচ
এখন প্রায় হাসপাতালেই মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে পরিচয় দিলেও তাদেরকে হেনস্থার স্বীকার হতে হয়,লাঞ্ছনার স্বীকার হতে হয়,শুনতে হয় নানা কটু কথা,এমনকি এক মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের গায়ে হাত তোলার ঘটনা পর্যন্ত ঘটেছে,ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে মুক্তিযোদ্ধার সনদ
অথচ
চিকিৎসার মত মৌলিক বিষয় রাষ্ট্রকে নিশ্চিত করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে নয় রাষ্ট্রের একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবেও চিকিৎসা প্রাপ্য।তাহলে কি রাষ্ট্র চিকিৎসা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হচ্ছেন?
অথচ
প্রধানমন্ত্রী অনেকের চিকিৎসা ভার নিতে পারেন যারা কিনা বঙ্গবন্ধুর বিরোধী ছিল,আওয়ামীলীগ এর বিরোধী ছিল কিন্তু দায়িত্ব নিতে পারেন না যাদের ত্যাগের বিনিময়ে একটা মানচিত্র পেলাম,একটা পতাকা পেলাম,একটা দেশ পেলাম আর তিনি পেলেন প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সুযোগ।
আর
জাতির পিতার ঘনিষ্ঠ সহযোগী যারা ছিলেন,যারা তার ডাকে যুদ্ধ করলেন,তাকে হত্যার পর যারা প্রথম বিদ্রোহ করলেন এমনকি যারা এখন পর্যন্ত জাতির পিতার পরিবারের সম্মান অক্ষুণ্ণ রাখার জন্য নিজের জান প্রাণ বিলিয়ে দিয়ে যাচ্ছেন আর তারাই আজ অবহেলিত, হামলা মামলার স্বীকার, পারিবারিক নিরাপত্তা হীনতায় থাকে,তারাই নাকি চিকিৎসার জন্য মানুষের দারে দারে ঘুরে,তারাই চিকিৎসার অভাবে মারা যাচ্ছেন।এটা একটা রাষ্ট্রের জন্য চরম ব্যর্থতা, এটা রাষ্ট্রের জন্য চরম লজ্জার,এবং সে রাষ্ট্রের একজন নাগরিক হিসেবে আমি চরমভাবে লজ্জিত ও দুঃখিত।
এবং
আশা করব রাষ্ট্রযন্ত্র একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে না হোক দেশের সাধারণ একজন মানুষ হিসেবে হলেও ৭১ এর বীর যোদ্ধাদের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিশ্চিত করে লজ্জার হাত থেকে আমাদের রক্ষা করবেন এবং এ বিষয়ে আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আপার সুদৃষ্টি একান্ত ভাবে কামনা করছি।

লিখেছেন:
অহিদুল ইসলাম তুষার
সাবেক ছাত্র
ইংরেজি বিভাগ
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

সভাপতি

মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিল

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2018 News Smart
ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট MetroNews71